ধর্ষণ আর ধর্ষক -মোঃ সাইফুল ইসলাম

0
372

ধর্ষণ মানে অত্যাচার;পীড়ন; বলাৎকার,
বল প্রয়োগে যৌনসম্ভোগ ইচ্ছার বিরুদ্ধে তার।
ধর্ষণ আলুলায়িত করে দেয় নারী জীবন
আত্মহত্যার মতো ভয়ঙ্কর পথে ঠেলে দেয়,
বিধ্বস্ত করে দেয় পরিবার সারা জীবনের মতো।

ধর্ষকরা মানুষ নয়, ভাম্পায়ার, রক্ত চোষক,
পাশবিক গুণাবলীতে ওরা পশু, ধর্ষক,
ওদের কার্যাবলী ভয়ঙ্কর লোমহর্ষক।

এই পশুত্বের কাছে চার বছরের শিশু থেকে
সত্তর বছরের বৃদ্ধা পর্যন্ত হচ্ছে ধর্ষিতা,
ধর্ষণ করছে মানুষ নামের পাপাত্মা,
এদেরকে মানুষ বলি কোন অভিধায়?

এদের লালসার উগ্রতায়-
কতো ফুল বিকশিত না হতেই ঝরে যায়।
কতো নারী জীবনে বেঁচে থেকেও মৃতপ্রায়।
এক দুর্বিষহ যাতনায় আজীবন কাতরায়।
ধর্ষকের হচ্ছে না কোনো বিচার;
নেতার প্রভাবে বেঁচে যায় বলে এটি মিথ্যাচার!

আজ আমরা মানুষ হয়ে বাঁচাচ্ছি কাকে!
কাল ধর্ষণ হবে কে? ওহে নেতা তুই শোন,
কাল ধর্ষণ হতেও পারে তোর বোন।
আজ ধর্ষিতার উপর নেমে আসে সংস্কারের অসি,
ধর্ষক হাসে নোংরা দাঁতে ক্রোড় হাসি।

শক্ত হাতে ধরো সমাজ সংস্কারের খড়গ!
ভেঙে গুঁড়িয়ে দাও ঘুণেধরা সমাজ সংস্কার!
ঘুরিয়ে ধর খড়গ ধর্ষকের গ্রীবায়,
বিনাশ হয়ে যাক ধর্ষণ নামক মহামারী ব্যাধি,
রচনা কর ধর্ষণ আর ধর্ষকের সমাধি।